মাসিক কল্যাণ সভা

পুলিশের সকল কাজ হবে পেশাদারিত্ব ও সমন্বয়ের মাধ্যমেঃ # কল্যাণ_সভায়_এসপি_রংপুর ০৬ জানুয়ারী ২০২১ (বুধবার) বেলা ১২ ঘটিকায় পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ অডিটোরিয়াম রংপুরে জানুয়ারী/২০২১ মাসের মাসিক কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। জনাব মোঃ আনোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) এর সঞ্চালনায় মাসিক কল্যাণ সভায় সভাপতিত্ব করেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পুলিশ, বাংলাদেশ পুলিশের উজ্জ্বল নক্ষত্র, রংপুর জেলা পুলিশের সম্মানিত অভিভাবক, মানবিক পুলিশ সুপার, #জনাব_বিপ্লব_কুমার_সরকার_বিপিএম (#বার) #পিপিএম_পুলিশ_সুপার_রংপুর। মাসিক কল্যাণ সভার শুরুতেই পুলিশ সুপার, রংপুর মহোদয় বলেন, পুলিশের কাজ হচ্ছে জনগনের নিরাপত্তা বিধান করা। যথাযথ আইন মেনে পুলিশকে সেই কাজ করতে হবে। পুলিশের সকল কাজ হবে পেশাদারিত্ব ও সমন্বয়ের মাধ্যমে। প্রত্যেক পুলিশ কর্মকর্তাকে তার অধীনস্থদের নিয়ন্ত্রন করার ক্ষমতা থাকতে হবে, তাদের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করতে হবে। সাধারন মানুষকে পেশাদারিত্বের সাথে সেবা দিতে হবে। রংপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে কল্যাণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রংপুর জেলার সকল পুলিশ সদস্যকে সকল ধরনের দুর্নীতির উর্ধ্বে থেকে শতভাগ পেশাদারিত্বের সাথে তাদের দায়িত্ব পালন করতে নির্দেশনা প্রদান করে তিনি বলেন, থানায় আগত সেবা প্রত্যাশীদের যেন কোনরকম হয়রানি করা না হয়। জিডি, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট কিংবা মামলার ক্ষেত্রে সকল ধরনের অনিয়ম দূর করে তিনি থানাকে একটি সেবাকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে সকলকে নির্দেশ প্রদান করেন। তিনি আরো বলেন, নিষ্ঠুর আচরণ পরিহার করে আইনের মাধ্যমে জনগনের সেবা নিশ্চিত করাই হলো পুলিশ বাহিনীর প্রধান কাজ। যারা বেআইনী কাজকর্ম করে পুলিশ বিভাগের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করবে তাদের বিরুদ্ধে তিনি কঠোর শাস্তির হুঁশিয়ারী উচ্চারন করেন। পুলিশের আচরণ এবং ব্যবহারে যেন কোনোভাবেই কোন মানুষ কষ্ট না পায় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে ও থানা পুলিশের সেবার মান বৃদ্ধি করতে হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। আমরা হতে চাই স্বপ্নের পুলিশ। পুলিশে পরিবর্তনের যে হাওয়া লেগেছে-তা বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে পুলিশ সুপার, রংপুর মহোদয় বলেন, পুলিশ বদলে গেছে’ ২০৪১ সালে আমরা উন্নত বাংলাদেশের উন্নত পুলিশ হতে চাই। সেই অনুপ্রেরণা নিয়ে এগোতে চাই আমরা। পুলিশের কোন সদস্য অবৈধ ভাবে অর্থ উপার্জন করলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যাবস্থা নেয়া হবে। মাদক মুক্ত দেশ গড়তে হলে পুলিশকে আগে মাদক মুক্ত হতে হবে। আমরা নিজেরা পরিশুদ্ধ হলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪১ সালের মধ্য দেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিনত করার যে নিরন্তর প্রচেস্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তার সে চেস্টা সফল ও সার্থক হবে। আমাদের এ দেশ বিশ্বের দরবারে একটি উন্নত ও মর্যাদা সম্পন্ন মডেল রাষ্ট্রে পরিনত হবে। জানুয়ারী/২০২১ মাসের, মাসিক কল্যাণ সভায় বিভিন্ন অত্র জেলার বিভিন্ন পদবীর অফিসার ও ফোর্স, তাদের দাবি পেশ করেন এবং তাদের সকল সমস্যা সভাপতি মহোদয় কল্যাণ সভায় শুনেন এবং সমস্যা সমাধানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। রংপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে মাসিক কল্যান সভায় উপস্থিত ছিলেন, জনাব মধুসূদন রায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) রংপুর, জনাব মারুফ আহম্মেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) রংপুর, জনাব আবু তৈয়ব মোঃ আরিফ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ-সার্কেল) রংপুর, জনাব মোঃ কামরুজ্জামান, পিপিএম-সেবা, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ডি-সার্কেল) রংপুর, জনাব মোঃ আরমান হোসেন পিপিএম, সহকারী পুলিশ সুপার (সি-সার্কেল) রংপুর, জেলা বিশেষ শাখার ডি আই ও (১) এ কে এম শরিফুল আলম, এবং জনাব মোঃ আঃ ওয়াহেদ (আরওআই) রিজার্ভ অফিস, রংপুর এবং জেলার আটটি থানার অফিসার ইনচার্জ গণসহ জেলা পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্য বৃন্দ মাসিক কল্যাণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

Download

জনাব মো: আনোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) রংপুর, এর সঞ্চালনায় মাসিক কল্যাণ সভায় সভাপতিত্ব করেন, বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর আইকন, বাংলাদেশ পুলিশের উজ্জ্বল নক্ষত্র, রংপুর জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার, জনাব বিপ্লব কুমার সরকার, বিপিএম (বার) পিপিএম, পুলিশ সুপার, রংপুর। মাসিক কল্যাণ সভার শুরুতে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আগামী ১৭ মার্চ জন্ম শতবার্ষিকী বর্ণাঢ্যভাবে উদ্‌যাপন উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি প্রণয়ন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। এবারের ‘মুজিব শতবর্ষ-২০২০’ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে পুলিশ সুপার, রংপুর মহোদয় সকল পুলিশ সদস্যদের শুভেচ্ছা জানিয়ে কল্যাণ সভা শুরু করেন। পুলিশ সুপার, রংপুর মহোদয় মাসিক কল্যাণ সভায় বলেন, আমরা হতে চাই স্বপ্নের পুলিশ। পুলিশে পরিবর্তনের যে হাওয়া লেগেছে-তা বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে পুলিশ সুপার, রংপুর মহোদয় বলেন, ‘পুলিশ বদলে গেছে’ ২০৪১ সালে আমরা উন্নত বাংলাদেশের উন্নত পুলিশ হতে চাই। সেই অনুপ্রেরণা নিয়ে এগোতে চাই আমরা। তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের মন জয় করে দেশ স্বাধীন করেছে। এজন্যই ২০২০ সালের জন্য পুলিশের শ্লোগান নির্ধারণ করা হয়েছে-‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার’। মার্চ ২০২০ মাসের, মাসিক কল্যান সভায় বিভিন্ন পদবীর অফিসার ও ফোর্স, তাদের দাবি পেশ করেন এবং তাদের সকল সমস্যা সভাপতি মহোদয় শুনেন ও সমস্যা সমাধানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এসময় অত্র জেলায় কর্মরত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে যারা পিআরএল গেছেন তাদের-কে জেলা পুলিশ রংপুরের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক (ক্রেস্ট) প্রদান করা হয়। রংপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে মাসিক কল্যান সভায় উপস্থিত ছিলেন, জনাব মোঃ আবু মারুফ হোসেন, পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদে কর্মরত (প্রশাসন ও অপরাধ) রংপুর। জনাব মোঃ ফজলে এলাহী, পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদে কর্মরত (জেলা বিশেষ শাখা) রংপুর। জনাব মারুফ আহম্মেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) রংপুর, জনাব মোঃ আরমান হোসেন, পিপিএম, সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার, সি-সার্কেল, রংপুর। জেলা বিশেষ শাখার ডি আই ও (১) এ কে এম শরিফুল আলম এবং জেলার আটটি থানার অফিসার ইনচার্জ গণসহ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্য বৃন্দ মাসিক কল্যাণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

Download

বুধবার বেলা ১২ টায় পুলিশ লাইন্স অডিটোরিয়াম রংপুর এ ফেব্রুয়ারি/২০২০ মাসের মাসিক কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। রংপুর জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) জনাব মো: আনোয়ার হোসেন এর সঞ্চালনায় মাসিক কল্যাণ সভায় সভাপতিত্ব করেন, রংপুর জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার, জনাব বিপ্লব কুমার সরকার, বিপিএম (বার) পিপিএম, পুলিশ সুপার, রংপুর। মাসিক কল্যাণ সভার শুরুতে এবারের মুজিব বর্ষের প্রধান প্রতিপাদ্য "মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার"এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখেই পুলিশ সুপার মহোদয় সকল পুলিশ সদস্যদের শুভেচ্ছা জানিয়ে কল্যাণ সভা শুরু করেন। পুলিশ সুপার মহোদয় মাসিক কল্যাণ সভায় বলেন, ইয়বা, জঙ্গি, সন্ত্রাস, ইভটিজিং ও বাল্যবিবাহ রোধে একযোগে সকল পুলিশ সদস্যদেরকে কাজ করার উদাত্ত আহ্বান জানান। সকল প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা রোধে সকলকে কঠোর নজরদারি রাখার জন্যও নির্দেশনা প্রদান করেন। তিনি আরও বলেন, পুলিশ ক্ষমতার বলে কাউকে কোনো প্রকার হয়রানি না করে সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাওয়া গেলে তাকে কঠোর শাস্তি পেতে হবে বলেও হুশিয়ারি প্রদান করেন। ফেব্রুয়ারি ২০২০ মাসের, মাসিক কল্যান সভায় বিভিন্ন পদবীর অফিসার ও ফোর্স, তাদের দাবি পেশ করেন এবং তাদের সকল সমস্যা সভাপতি মহোদয় শুনেন ও সমস্যা সমাধানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। রংপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে মাসিক কল্যান সভায় উপস্থিত ছিলেন, জনাব মোঃ আবু মারুফ হোসেন, পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদে কর্মরত (প্রশাসন ও অপরাধ) রংপুর। জনাব মোঃ ফজলে এলাহী, পুলিশ সুপার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদে কর্মরত (জেলা বিশেষ শাখা) রংপুর।জনাব মোঃ আরমান হোসেন, পিপিএম, সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার, সি-সার্কেল, রংপুর। জেলা বিশেষ শাখার ডি আই ও (১) এ কে এম শরিফুল আলম এবং জেলার আটটি থানার অফিসার ইনচার্জ গণসহ পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তা ও পুলিশ সদস্য বৃন্দ মাসিক কল্যাণ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

Download